প্রেমের আগেই বিয়ের সিদ্ধান্ত স্পর্শিয়ার

জিটিবি বিনোদন : দু’জনের প্রথম দেখা বৈশাখে। দু’জনই মিডিয়াপাড়ার বাসিন্দা। একজন অভিনয় শিল্পী অন্যজন মিউজিক ভিডিও নির্মাতা। দুজনের কাজকর্মই ক্যামেরাকে ঘিরে। একজন ক্যামেরার সামনে, আরেকজন ক্যামেরার পেছনে। কাজের সূত্রেই খাতিরেই দু’জনের পরিচয়। তখন একটি মিউজিক ভিডিওর কাজ শুরু করছেন স্পর্শিয়ার এক বন্ধু। স্পর্শিয়াকে জেঁকে ধরেছেন তাতে অভিনয়ের জন্য। কিন্তু তখন স্পর্শিয়ার তখন দম ফেলার জো নেই। বৈশাখীর বেশ ক’টি নাটকের কাজে তিনি তুমুল ব্যস্ত। কিন্তু বন্ধুর জোরাজুরি ফেলতে পারলেন না তিনি। কাজ শুরু করলেন।
মিউজিক ভিডিওটির ডিরেকশন দিচ্ছেন বন্ধুর বন্ধু রাফসান আহসান। তরুণ মিউজিক ভিডিও নির্মাতা। উল্লেখ্য করার মতো তেমন কাজ তার নেই। তবে ছেলেটা বেশ মিশুক। শুটিংয়ের ফাঁকে আড্ডা দিতে ভালোবাসেন। কথার পিঠে কথার তালে মাতিয়ে রাখে চারপাশ। শুটিংয়ের সময়টা বেশ উপভোগ করতেন স্পর্শিয়া।
বিশেষ করে রাফসানকে তার ভালোই লাগতো। দিনে দিনে তারা বন্ধু হয়ে উঠলেন। এরপর আরো কয়েকটি কাজ একসঙ্গে করেন। কাজেরই ফাঁকে ছেলেটা স্পর্শিয়ার দিকে আনমনে তাকিয়ে থাকত। চোখ দুটি কী যেন বলতে চায়! বলি বলি করেও ছেলেটা আর বলতে পারেনা। বাংলা সিনেমার লাভ স্টোরির মতো।
হঠাৎ একদিন ছেলেটি বলেই ফেলল, ‘দোস্ত আমি তোকে ভালোবাসি!’ কথাটা শুনে স্পর্শিয়া যে একেবারে আকাশ থেকে পড়লেন তা কিন্তু নয়। ছেলেটাকেও তার ভালো লাগতো। স্পর্শিয়া নিজেই স্বীকার করলেন, ‘আমি তাকে পছন্দ করতাম। তবে ভালোবাসতাম কি না ঠিক বলতে পারছি না।’ প্রোপোজ করার পর আপনি কি বলেছিলেন? স্পর্শিয়া জানালেন, ‘আমি বললাম প্রেম নয়, একেবারে বিয়ে করবো। বাসায় বিয়ের প্রস্তাব দে!’
প্রেম ছেড়ে সরাসরি বিয়েতে আগ্রহের কারণও জানালেন তিনি, ‘আমি এর আগে অ্যাফেয়ারে জড়িয়েছি। আপাতত আর অ্যাফেয়ারে নিজেকে জড়াতে চাচ্ছি না।’ রাফসান বাবা-মাকে জানিয়েছেন। বাবা-মাও রাজি। স্পর্শিয়ার মার কাছে ছেলের বিয়ের প্রস্তাব পাঠিয়েছেন রাফসানের বাবা-মা। স্পর্শিয়ার মাও রাফসানকে চেনেন। পছন্দও করেন। খালারা নাকি বেশ খুশি। দুই পরিবার থেকে গ্রিন সিগন্যাল পাওয়া এখন সময়ের ব্যাপার।

সিগন্যাল পেলেই বিয়েটা সেরে ফেলতে চান স্পর্শিয়া-রাফসান। ইতিমধ্যে রাফসান তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের প্রোফাইলে স্পর্শিয়ার সঙ্গে তোলা একটি ছবি প্রকাশ করেন গতকাল। রাফসানের কাছের বন্ধুদের একজন কমেন্ট করেছেন, ‘ব্যাপারটা আগে থেকেই জানতাম। এবার আনুষ্ঠানিকভাবে দুজনকে শুভেচ্ছা জানালাম।’ দুজন মিলে বেশ কিছু প্ল্যানও হাতে নিয়েছেন। ‘আমরা একটি প্রোডাকশন হাউস দেব।’ বললেন স্পর্শিয়া। স্পর্শিয়া এখন বেশ কটি ঈদের নাটক নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। আলী ফিদা আকরামে ফ্যামেলি প্যাকের শুটিং শেষ করলেন সম্প্রতি। ফয়সাল রাজীবের লগ আউট নাটকে কাজ করছেন। আশুতোষ সুজনের নাম ঠিক না হওয়া আরো একটি নাটকে নাম লিখিয়েছেন।

Please follow and like us:
Pin Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this:

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD