৯০ দিনের টার্গেট, দুর্নীতি একেবারেই হবে না : তারানা হালিম

ডাক ও টেলিযোগাযোগ খাতের উন্নয়নে ৯০ দিনের কর্মপরিকল্পনা তৈরি করে তা বাস্তবায়ন করাই প্রথম চ্যালেঞ্জ হিসেবে মনে করছেন এ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত নতুন প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

একই সঙ্গে মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি যেন কোনোভাবে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য নিজের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়ে বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) সচিবালয়ে আসেন তারানা হালিম। দায়িত্ব বুঝে নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে এ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন নতুন এ প্রতিমন্ত্রী।

একটি গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন উল্লেখ করে তারানা হালিম বলেন, সবার মতামত নিয়ে ৯০ দিনের একটি কর্মপরিকল্পনা তৈরি করে সেটা বাস্তবায়নের চেষ্টা করবো। জনগণের প্রত্যাশা অনুযায়ী এই কর্মপরিকল্পনা তৈরি করা হবে।

কর্মপরিকল্পনার মধ্যে পেছনে পড়ে থাকা ডাক বিভাগকে ডিজিটালাইজড করার কথা ব্যক্ত করেন প্রতিমন্ত্রী। ডাক বিভাগ এনালগ থাকতে পারে না, এই বিভাগে ১১৮টি গাড়ি কোনো ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার হবে না বলে জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের রাজস্ব দেশে থাকবে, এজন্য যে যে বিভাগ শক্তিশালী করা দরকার তা করবো। দেশের রাজস্ব দিয়ে যেন উন্নয়ন হয়। যে প্রতিষ্ঠানগুলো (টেলিকম) আছে সেগুলো যেন প্রতিযোগিতা করে বিজয়ী হতে পারে। প্রতিষ্ঠানের কাছে বকেয়াগুলো আদায় করে রাজস্ব বৃদ্ধি করা হবে। এজন্য বাধাগুলো অতিক্রম করার আপ্রাণ চেষ্টা করবো।

রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটককে আরও শক্তিশালী করার কথা জানান প্রতিমন্ত্রী। টেলিটক শক্তিশালী হলে রাজস্ব দেশে থাকবে। অন্য কোম্পানিগুলো ফেয়ার কমপিটিশন করে টিকে থাকবে। রাজস্ব দিয়ে পদ্মা সেতুর মতো বড় বড় প্রকল্পের কাজ করা সম্ভব বলেও মনে করেন তিনি।

মন্ত্রণালয়কে শক্তিশালী করা হবে উল্লেখ করে তারানা হালিম বলেন, আমি বাইরে থেকে যতোটুকু শুনেছি এখানে দুর্নীতি হচ্ছে না। সচিবসহ সবাই সততার সঙ্গে কাজ করছেন। এই টিমকে আরও শক্তিশালী করতে চাই। এই মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি যেন কোনভাবে প্রবেশ করতে না পারে। দুর্নীতি এখানে একেবারেই হবে না।

তিনি বলেন, যেহেতু প্রধানমন্ত্রী সৎ, উনি সৎ হিসেবে আমাকে বিশ্বাসযোগ্য মনে করেছেন, কোনোভাবে যেন কেউ পয়েন্ট আউট করতে না পারে যে এখানে দুর্নীতি হয়।

টেলিকম কোম্পানিগুলোর উদ্দেশে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বৈধ কাজের জন্য মন্ত্রণালয় উন্মুক্ত থাকবে, অবৈধ কাজের জন্য মন্ত্রণালয়ের দরজা বন্ধ থাকবে।

বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে নয়টার দিকে সচিবালয়ে আসেন প্রতিমন্ত্রী। এরপর মন্ত্রণালয়ের সচিব ফয়জুর রহমানসহ কর্মকর্তারা তাকে বরণ করে নেন।

গত মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) নুরুল ইসলাম বিএসসিকে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী, নুরুজ্জামান আহমেদকে খাদ্য প্রতিমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে এবং ইয়াফেস ওসমানকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

Please follow and like us:
Pin Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this:

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD