প্রাণঘাতী রোগ প্রতিরোধে বাতাবি লেবু

ঢাকা: পুষ্টিগুণে ভরপুর দেশি ফল বাতাবি লেবু। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় এই ফল প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। বাতাবি লেবু জাম্বুরা বা ছোলম নামেও পরিচিত। এ লেবু বিভিন্ন জাতের হয়ে থাকে। স্থানভেদে বাতাবি লেবু বা জাম্বুরার ভেতরে রসাল কোষগুলো হলুদ, লাল, গোলাপি হয়ে থাকে। লেবুর কোষগুলোর ঘনত্ব বেশি এবং খুব সহজেই রস বা জুস তৈরি করা যায়। কোনোটির স্বাদ মিষ্টি আবার কোনোটির স্বাদ টক হয়। বাংলাদেশে মৌসুমি ফল হিসেবে এর যথেষ্ট সমাদর রয়েছে। প্রতি ১০০ গ্রাম বাতাবি লেবুর মধ্যে আছে ৩৭ কিলোক্যালরি, শর্করা ৯.২ গ্রাম, চিনি ৭ গ্রাম, খাদ্যআঁশ ১.২ গ্রাম, প্রোটিন ২.৪ গ্রাম, চর্বি ২ গ্রাম। বিটা ক্যারোটিনের পরিমাণ ১২০ মিলিগ্রাম, ভিটামিন ৬০ গ্রাম, ভিটামিন ‘বি’ থাকে। ক্যালরি কম থাকায় ডায়াবেটিস ও স্থুলকায়দের জন্য খুবই উপকারী ফল। এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের প্রাণঘাতী রোগ প্রতিরোধে বাতাবি লেবুর রস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। জেনে নেয়া যাক আরও বিস্তারিত-
• অ্যাসিডিক হওয়ার কারণে খাদ্য পরিপাকে বাতাবি লেবু অত্যন্ত সহায়ক। হজম হওয়ার পর বাতাবি লেবুর রস অ্যালকালাইন রি-অ্যাকশন তৈরি করে হজমে সহায়তা করে।
• বাতাবি লেবুর খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে বায়ো-ফ্লাভোনয়েড, যা ক্যানসার কোষ বিস্তাররোধে সহায়তা করে। অতিরিক্ত ইস্ট্রোজেন থেকে শরীরকে মুক্ত রাখার কারণে ব্রেস্ট ক্যানসার চিকিৎসায় বাতাবি লেবু ভূমিকা রাখে।
• অতিরিক্ত ভিটামিন সি থাকার কারণে ধমনীর ইলাস্টিক অবস্থা ও দৃঢ়তা রক্ষায় ও বাতাবি লেবু অত্যন্ত কার্যকর।
• জ্বর, ডায়াবেটিস, নিদ্রাহীনতা, গলার ক্ষত, পাকস্থলী ও প্যানক্রিয়াসের ক্যানসার এবং অন্যান্য সংক্রামক রোগ চিকিৎসা ও প্রতিরোধে বাতাবি লেবুর জুড়ি নেই।
• যে কোনো ধরনের কাটা, ছেঁড়া ও ক্ষত সারাতে বাতাবি লেবুর জুড়ি নেই।
• শরীরের ক্লান্তি ও অবসাদ নিরাময়ে বাতাবি লেবু বেশ উপকারী।
• লেবুতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকায় বাতাবি লেবু বয়স ধরে রাখতে সহায়তা করে এবং বুড়িয়ে যাওয়া বিলম্বিত করে।
• বাতাবি লেবুতে রয়েছে পেকটিন যা ধমনীর রক্তে দূষিত পদার্থ জমা হতে বাধা দেয় এবং দূষিত পদার্থ বের করতে সহায়তা করে।
• রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হৃৎপিণ্ড সুরক্ষা এবং হৃদরোগজনিত জটিলতা থেকে শরীরকে রক্ষা করে।
• শরীরের ওজন কমাতেও বাতাবি লেবু সহায়তা করে। বাতাবি লেবুর ফ্যাট বার্নিং এনজাইম শ্বেতসার ও সুগার শোষণ করে ওজন কমাতে সহায়তা করে।
• রক্তের লোহিত কণিকাকে টক্সিন ও অন্যান্য দূষিত পদার্থের হাত থেকে রক্ষা করে বিশুদ্ধ অক্সিজেন পরিবহনে সহায়তা করে।

Please follow and like us:
Pin Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this:

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD