সাপ্তাগিক চলনবিল বার্তা , সংখ্যা ২৯ সোমবার ৫ জুন ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৬ জ্বিলকদ

Spread the love

লোকেরা কি মনে করে যে, ‘আমরা ঈমান এনেছি’ একথা বললেই তারা অব্যাহতি পেয়ে যাবে, আর তাদের পরীক্ষা করা হবে না? (সূরা আনকাবুত, রুকু-১, আয়াত-২)

শতার্ধ বছর পরও ভেসে আসছে একটি ভুল
বীরমুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ শুকুর মাহমুদ

স্বাধীনতার অর্ধশত বছর পেরিয়ে গেলো এখনো মাঝে মাঝে পিরা দেয় একটি ভুল। শহা¯্রাধিক বছরের পরাধীনতা, নিষ্ঠুর নির্যাতনে শত সংগ্রাম হাজারো প্রতিরোধের পর ১৯৭১ সালে গর্জে উঠেছিলো স্বাধীনতাকামী বাঙালি ৩০ লক্ষ শহিদ, ২লাখ ইজ্জতের বিনিময়ে বহু ত্যাগ ও সংগ্রামের ফসল, আমাদের স্বাধীনতা।
স্বাধীনতা যুদ্ধে যদি আমরা ব্যর্থ হতাম বিনা বিচারেই আমাদের হত্যা করত রাষ্ট্রদ্রোহিতার দায়ে। যুদ্ধে পরাজয় বরণ করে আত্মসর্ম্পন করলো পাকিস্তানি সামরিক জান্তারা, কিন্তু ! কোথায় রইলো ওদের দোষররা? স্বাধীন বাংলাদেশের জেলখানায় বন্দি করা হলো হানাদার বাহিনীর সদস্যদের। ওদের দোষর, দালাল-রাজাকাররা স্বাধীন দেশেই রয়ে গেল, আমাদের দয়ায়। বিনা বিচারেই নির্মূল করা উচিৎ ছিলো দালাল-রাজাকারদের, তা হয়নি। এটাই ছিলো একটি ভুল।
আজও মাথা চারা দিয়ে উঠে হুংকার ছারে আমাদের উপর, পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে। কৌশল খোঁজে মুক্তিযোদ্ধাদের নির্মূল করতে। মুক্তিযোদ্ধারা স্বাধীনতা বিরোধীদের চির শত্রæ। শতার্ধ বছর পরও ভেসে উঠে সেই একটি ভুল। দেশের প্রতিটি মুক্তিযোদ্ধাই এখন বার্ধ্যকের কাধে ভর করে চলছে, আমিও তাদেরই একজন। আমার ধারণা স্বাধীনতা বিরোধীরা কখনোই বাঙালি হতে পারে না।
বয়সের ভারে বাইরের কাজে যাওয়ার সাহস পাই না, নিয়মিত আয়ের পথও বন্ধ। বৃদ্ধ বয়সে সরকারের অনুগ্রহে মুক্তিযোদ্ধা সম্মানী ভাতাটি হাত খরচের অবলম্বন। মাসের মধ্যভাগ থেকে শেষ পর্যন্ত বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় কিছু জিনিসপত্র বাকিতে ক্রয় করতে হয়, পরে ভাতা উত্তোলন করে পরিশোধ করি।
গত মাসের মধ্যভাগে দুঃসম্পর্কীয় এক আত্মীয়র দোকান থেকে কিছু বাকি নিয়েছিলাম, মাসের শেষে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা উত্তোলন করে বাকি পরিশোধ করতে গিয়েছি, ওই দোকানে। দোকানির পাওনা টাকা বের করে হাতে দিতেই প্রশ্ন করল, টাকা কোথায় পেলেন? জবাব দিলাম আজ মুক্তিযোদ্ধা ভাতা উত্তোলন করেছি।আমার কথা শুনে লোকটি হিংসায় ফেটে পরে বলল, এতগুলো টাকা রাস্তায় পরে পাওয়ার মত পেলেন। সরকার অহেতুক মুক্তিযোদ্ধাদের এত সুযোগ-সুবিধা দিয়ে দেশের ক্ষতি করছে। সরকারের উচিৎ ছিল, স্বাধীনতার পর মুক্তিযোদ্ধাদের একত্রিত করে জাহাজে উঠিয়ে সাগরে জাহাজ ডুবিয়ে শেষ করে দেয়া, তাতে আর এই ঝামেলা থাকত না।
মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি তার এমন বক্তব্যের কারণ অনুসন্ধান করে দেখা গেল ওই দোকানির পূর্ব পুরুষ স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে সমর্থক ছিল, পরবর্তীকালে ওই দোকানদারের রাজনৈতিক সম্পর্ক গড়ে উঠে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র রাজনীতিতে। বর্তমান সময়ে বিএনপির প্রতিকূল অবস্থা দেখে গা বাঁচাতে তার এক ছেলেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে ঢুকিয়ে দিয়ে নিরাপদে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, সুযোগ পেলেই পূর্বের অবস্থানে ফিরবে।আমাদের ভাবা উচিৎ, রং বদলানো রাজনৈতিক ব্যক্তি ও স্বাধীনতা বিরোধীরা কখনোই বাঙালি হতে পারে না। স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রতি আহŸান রাজনীতিতে অগাছা-পরগাছা না ঢুকাতে।

তাড়াশে জলাবদ্ধতায় বিশাল এলাকায়
আমন আবাদ অনিশ্চিত

সাব্বির আহম্মেদ, তাড়াশ : শস্য ভান্ডার খ্যাত সিরাজগঞ্জে তাড়াশে ধাপের খাল নামের একটি গুরুত্বপূর্ণ সরকারি খাল দখল করে পুকুর খনন করায় পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে চারটি গ্রামের ফসলী মাঠে ভয়াবহ জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। আর জলাবদ্ধতার কারণে ওই চারটি গ্রামের কৃষকদের প্রায় ২ হাজার হেক্টর জমিতে আসন্ন আমন আবাদ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।
এ দিকে খাল বন্ধ করে পুকুর খননকারীদের কবল থেকে খাল রক্ষার পাশাপাশি জলাবদ্ধ ফসলী জমিতে কৃষকেরা যাতে আমনের আবাদ করতে পারে সে ব্যবস্থা নিতে চার গ্রামের কৃষক গন স্বাক্ষরিত লিখিত আবেদন তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. মেজবাউল করিমসহ বিভিন্ন সরকারী দপ্তরে দিয়েছেন।
স্থানীয় কৃষকেরা জানান, ১৯৮০ সালে ফসলী জমির পানি নিস্কাষন এবং শুল্ক মৌসুমে সেচ সুবিধার জন্য উপজেলার মাধাইনগর ইউনিয়নের কাস্তা গ্রাম খেকে উত্তর মথুরাপুর গ্রামের ধাপের ব্রীজ পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার দীর্ঘ ধাপের খালটি সরকারি ভাবে খনন করা হয়। খাল খননের পর থেকেই ওই এলাকার ফসলী জমির জলাবদ্ধতারোধ, সেচ সুবিধা, বর্সা মৌসুমে নৌ- চলাচলের মত নানা সুবিধা পাচ্ছিলেন এলাকাবাসী। আর সে সুবিধা স্থায়ী করতে পরবর্তীতে সরকারী অর্থায়নে আরো দুই দুই বার খালটি পুনঃ খনন করে পানি প্রবাহ সচল রাখা হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে উত্তর মথুরাপুর গ্রামের মৃত দৈয়ম আলীর প্রভাবশালী দুই ছেলে তালিম উদ্দিন ও আব্দুল আলিম তাদের বাড়ির পূর্ব পাশ দিয়ে বয়ে চলা ওই ধাপের খালটির বেশ কিছু অংশ দখল করে পুকুর খনন করেন। ফলে কাস্তা, বেত্রাশিন, ওয়াশীন ও উত্তর মথুরাপুর গ্রামের ফসলী মাঠের পানি প্রবাহের পথ স্থায়ী ভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এতে ওই ৪ গ্রামের ফসলী মাঠের প্রায় ২ হাজার হেক্টর জমিতে ভয়াবহ জলাবদ্ধত সৃষ্টি হয়ে বর্ষাকালীন বোনা আমন ও রোপা আমন চাষ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ওয়াশীন গ্রামের কৃষক হাবিবুর রহমান জানান, সরকারি খাল দখল করে পুকুর খনন করায় ওই সকল মাঠের প্রায় ২ হাজার হেক্টর জমিতে হাটু পানি জমে আছে। ফলে আমরা জমি গুলোতে কোন ভাবেই আমন ধানের আবাদ করতে পারছিনা এবং পানি নিস্কাষন ছাড়া আবাদ করাও সম্ভব না। এ ছাড়া কৃষক ইউনুছ আলী, ইসমাইল হোসেন, গোলাপ হোসেন,বাচ্চু সরকারসহ ভুক্তভোগী কৃষকেরা খাল দখলদারদের উচ্ছেদ করে খালের পানি প্রবাহের পথ নিশ্চিত করে তাদের শত শত হেক্টর ফসলী জমি জলাবদ্ধতা নিরসন করে তাঁদের জমি চাষ যোগ্য করার দাবী জানান। এ দিকে কৃষকদের আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাহবুবুর রহমান, তাড়াশ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) নূরী তাসনিম উমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।অবশ্য খাল দখল সম্পর্কে আব্দুল আলিম বলেন, ওখান দিয়ে খাল থাকলেও জায়গাটি আমাদের জমা জায়গা। তাই পুকুর খনন করেছি।
এ প্রসঙ্গে তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো, মেজবাউল করিম বলেন, সোমবার সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ একটি টিম সরেজমিনে ওই এলাকা পরিদর্শন করেছে। আর কৃষকদের ফসলী জমিতে জলাবদ্ধতা নিরসনে দ্রæত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভাঙ্গুড়ায় নৌকা তৈরির ধুম :

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি: আসছে বর্ষাকাল। চলছে নৌকা তৈরি ও পুরোনো নৌকা মেরামতের ধুম। প্রতিবছর বর্ষা আসার আগেই চলনবিল অধ্যুষিত পাবনার ভাঙ্গুড়ায় শুরু হয় নৌকা তৈরির কাজ। এ সময়টাতে নৌকার কারিগরদের ব্যস্তাা বেড়ে যায়। বর্ষাকালে এ উপজেলার অধিকাংশ জনপদ পানিতে থই থই করে। ডুবে যায় রাস্তাাঘাট, নদী-নালা ও খাল-বিল। নৌকা দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। মৎস্যজীবীরাও মাছ ধরার কাজে ব্যবহার করেন ছোটবড় নৌকা। তাই বর্ষা মৌসুম আসলেই এ অঞ্চলে বেড়ে যায় নৌকার কদর।
সংশ্লিষ্টরা জানান, পৌরশহরের কালিবাড়ি, জগাতলা ও উপজেলার অষ্টমনিষায় প্রায় ৫০-৬০টি কাঠমিস্ত্রি রয়েছে। এ সকল কাঠমিস্ত্রিরা বর্ষা মৌসুম শুরুর মাসখানেক আগে থেকেই নৌকা তৈরির কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। বছরের বাকি সময়টা তাঁরা চেয়ার-টেবিল, দরজা-জানালাসহ অন্যান্য আসবাবপত্র তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করেন।নৌকার কারিগর কাঠমিস্ত্রি মহাদেব সূত্রধর জানান, কাঠের কাজ তাঁর পেশা। বর্ষাকাল শুরুর ১-২ মাস আগে থেকেই তিনি নৌকা তৈরির কাজ শুরু করেন। বর্ষায় নৌকা আর বছরের বাকি সময়টা চেয়ার-টেবিল, দরজা-জানালা তৈরি করে চলে তার সংসার।এলাকার প্রবীণ কাঠমিস্ত্রি বিশনো সূত্রধর জানান, নয় হাত লম্বা একটি নৌকা ৩ – ৪ হাজার টাকা এবং ১২ হাত নৌকা ৫ – ৬ হাজার টাকায় বিক্রি করছেন। কারখানা ছাড়া হাটবাজারে তিনি নৌকা বিক্রি করেন না। এ ছাড়াও ভাঙ্গুড়াসহ আশপাশের বিভিন্ন উপজেলা থেকে মানুষ এসে তার কাছ থেকে নৌকা তৈরি করে নিয়ে যায়। শুধু হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন নয়, মুসলমানদের অনেকেই এখন এ পেশার সঙ্গে জড়িত। এ মৌসুমে নৌকা তৈরির কাজ বেশি পান।

গুরুদাসপুরে অতিরিক্ত কোরবানির পশু ৫০ হাজার

আবুল কালাম আজাদ : আগামি ১০ জ্বিলহাজ্ব , ২৯ জুন-২০২৩ শনিবার (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে) মোতাবেক এক মাসেরও কম সময় আছে মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় ধর্মীয় উতসব পবিত্র ঈদুল আজ্বহা।নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলায় আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিক্রির জন্য ৯০ হাজার কোরবানির পশু প্রস্তুত করেছেন খামারিরা।উপজেলার অভ্যন্তরে কোরবানির পশুর ৪০ হাজার চাহিদা পুরণ করেও ৫০ হাজার উদ্বৃত্ত থাকবে, যা দেশের অভ্যন্তরে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় বিক্রির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন খামারি ও ব্যবসায়ীরা।
বিগত ৩ বছর অতিমারি কোভিড-১৯ বৈশ্বিক করোনাকালিন সংক্রমন প্রতিরোধে দেশব্যাপী লকডাউনের মধ্যে উপজেলার ভিতরে এবং বাহিরের জেলায় হাট বসিয়ে কোরবানির পশু বিক্রি করা যাবে কিনা এই আশংকায় গড়ে উঠেছে অনেকগুলো অনলাইন প্লাটফর্ম। এতে প্রস্তুতকৃত কোরবানির পশু বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলেন খামারি ও ব্যবসায়ীরা।গুরুদাসপুর উপজেলা প্রানিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আলমগির হোসেন জানান-৯০ হাজার কোরবানির পশুর মধ্যে ২৯,৭৬৭ টি গরু,( ষাঁড় ২০,৬২৭ টি,বলদ ২৭৪৭ টি, গাভী ৬৩৯৩ টি) , মহিষ ৩০,৫৭৪ টি, ৫১, ৬৮০ টি ছাগল ৫,৬০৬ টি ভেড়া ও অন্যান্য ৯ টি। এসব পশুর বাজারমূল্য অন্তত সাড়ে ৪০০ কোটি টাকা। গত বছরের তথ্য মতে গুরুদাসপুর উপজেলায় প্রায় ৩০ হাজার ৫০০ কোরবানির পশু জবাই হয়েছে। এবারে প্রায় ৪০ হাজার পশু কোরবানি হরে বলে আশা করছে উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগ। উপজেলায় চাহিদার চেয়ে অতিরিক্ত আরও ৫০ হাজার পশু কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছ্র ,। উপজেলায় মোট খামারির সংখ্যা ২৩ হাজার ।

কলকারখানার বর্জ্য-দূষণে
ফুলজোর নদীর পানি বিষাক্ত

রাশিদুল হাসান : বিষাক্ত বর্জ্যে থামছেই না ফুলজোর নদীতে মাছ মরা, চাষীদের হয়েছে প্রায় ১৪ কোটি টাকার ক্ষতি। সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জের ফুলজোড় নদীতে খাচায় মাছ চাষ করা খামারিরা অসহায় হয়ে পড়েছেন। এর আগে বগুড়া জেলার শেরপুরে ক্ষতিগ্রস্থ মাছ চাষি ও সচেতন মহল নদী দূষণ নিয়ে মানববন্ধন করেন। তারপরেই রায়গঞ্জের চান্দাইকোনা বাসস্ট্যান্ডে মানববন্ধন করেন সচেতন মহল ও ক্ষতিগ্রস্থরা। উপজেলার মাঝ দিয়ে প্রবাহিত ফুলজোর নদীর পানি গত কয়েকদিন থেকে বিষাক্ত হয়ে পড়েছে। নদীর পানি দূষণের ফলে খাঁচায় চাষকৃত মাছ ও নদীর নানা প্রজাতীর জলজপ্রাণী মারা যাচ্ছে। এতে করে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে মৎস্য চাষীদের। পানি দূষণের ফলে পরিবেশ পড়েছে হুমকির মুখে। কারখানার কেমিক্যালের বিষাক্ত বর্জ্য নদীতে ফেলার কারণে খাঁচা ও নদীর মাছ গুলো মারা যাচ্ছে। মাছ মরা যেনো থামছেই না। প্রায় ১৪ কোটি টাকা ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে উপজেলার নলকা ইউনিয়নের সাহেবগঞ্জ বাজার বাসস্ট্যান্ডে আবারো মানববন্ধনে নেমেছে ক্ষতিগ্রস্থ ৭০ টি খাচায় মাছ চাষ করা পরিবার। বুধবার ৩১ মে সকালে এই মানববন্ধন করেন স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যরা। মানববন্ধনে ক্ষগ্রিস্থ পরিবাররা বলেন, এনজিও, বিভিন্ন ব্যাংক থেকে চরা সুদে লোন ও আত্মীয় স্বজনদের থেকে ধারদেনা করে আমরা এই ফুলজোড় নদীতে খাঁচায় মাছ চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। এই মাছ চাষই আমাদের মুল জীবিকার উৎস। কারখানার বিষাক্ত বর্জ্যে আমাদের চাষ করা মাছ মরে সব শেষ হয়ে গেছে। এখন আমরা নিঃস্ব হয়ে গেছি।আমাদের ক্ষতিপূরণ না দিলে একেবারে পথে বসতে হবে। তাই নদী দূষণ বন্ধ করে ক্ষগ্রিস্থ পরিবারের ক্ষতিপূরণের দাবি নিয়ে রাস্তায় মানববন্ধনে নেমেছি আমরা।

বড়াইগ্রামে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি : আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাটোর-৪(বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর)আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী বনপাড়া পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি কে এম জাকির হোসেন এর সাথে জেলা ও উপজেলায় কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকদের মত বিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার সকালে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া বাজার সংলগ্ন শহীদ ডা.আইনুল হক এর বাসভবনে তিনি এ মতবিনিময় করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বড়াইগ্রাম জার্নালিস্ট এসোসিযেশনের সভাপতি সাঈদ সিদ্দিক, সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান,বড়াইগ্রাম কেন্দ্রীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি অমর ডি কস্তা ও বড়াইগ্রাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম। মতবিনিময় সভায় কে এম জাকির হোসেন বর্তমান সরকারের সফলতার দিকগুলো তুলে ধরেন। এছাড়া তিনি বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাটোর-৪ আসনে আওয়ামীলীগ থেকে আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে এ আসনে আওয়ামী লীগের সকল বিরোধ নিরসনসহ দেশরতœ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়নে এবং দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে কাজ করা হবে।
তাড়াশের সাদ্দামের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন
বিশেষ প্রতিনিধি ঃ দুই বছর আগে কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে সাদ্দাম হোসেনের (৩৩) দুটো কিডনিই নষ্ট হয়ে গেছে। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে তার বড় বোন জেসমিন (৪৫) একটি কিডনি ভাইকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ইতোমধ্যে কিডনি প্রতিস্থাপন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হয়ে গেছে। কিন্তু টাকার অভাবে কিডনি প্রতিস্থাপন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।
এদিকে কিডনি রোগী সাদ্দাম হোসেন বলেন, জনশুমারি ও গৃহগণনার চ‚ড়ান্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী বর্তমানে বাংলাদেশের জন সংখ্যা প্রায় ১৭ কোটি। তাদের মধ্যে থেকে ১০ লাখ মানুষ ১ টাকা করে দিয়ে সহযোগিতা করলে কিডনি প্রতিস্থাপনের ব্যয় হয়ে যাবে। বেঁচে যাবে আমার জীবন।
সাদ্দাম হোসেন উপজেলার মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের দিঘী সগুনা গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। বর্তমানে সাদ্দাম হোসেন ঢাকার কিডনি ফাউন্ডেশন এন্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিচ্ছেন। পাশাপাশি ঢাকার গণস্বাস্থ্য সমাজ ভিত্তিক মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হাসপাতালে সপ্তাহে দুদিন কিডনি ডায়ালাইসিস করা হচ্ছে। সপ্তাহে তিনবার ডায়ালাইসিস করা গেলে ভালো হতো। কিন্তু টাকার অভাবে সঠিকভাবে চিকিৎসা নিতে পারছেননা। সাদ্দাম হোসেনের মা রোকেয়া খাতুন বলেন, চিকিৎসা করে অতি আদরের একমাত্র ছেলেকে সুস্থ করে তুলতে পারিনি। এরই মধ্যে চিকিৎসার ব্যয় বহন করে সহায় সম্বলহীন হয়ে পড়েছেন। বসত বাড়ির জায়গাটুকোও বিক্রি করে দিয়েছেন । চিকিৎসক এক মাসের মধ্যে জরুরি ভিত্তিতে কিডনি প্রতিস্থাপন করতে বলেছেন। সময় পাড় হয়ে যাচ্ছে। টাকার জোগার করতে পারছেন না। দেশ ও প্রবাসের মানুষ টাকা দিয়ে সহযোগিতা না করলে ছেলেকে বাঁচানো সম্ভব হবেনা।
সাদ্দাম হোসেনের বোন জেসমিন খাতুন বলেন, আমাদেরকে টাকা পাঠানোর বিকাশ নাম্বার ০১৭৩৪৩১০১৯৪। এছাড়াও জনতা ব্যাংক তাড়াশ শাখার ০১০০২২৭৪৩৮২৩৬ নাম্বার হিসাবেও সাহায্য পাঠাতে পারেন। এ প্রসঙ্গে সিরাজগঞ্জ-৩ (তাড়াশ, রায়গঞ্জ, সলঙ্গা) আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল আজিজ বলেন, সাদ্দাম হোসেনের কিডনি প্রতিস্থাপনের বিষয়ে তিনি অবগত রয়েছেন। চিকিৎসার জন্য আগে কিছু আর্থিক সহযোগিতাও করেছেন।
রায়গঞ্জে পানি সরবরাহ প্রকল্প অনিশ্চিত
রাশিদুল হাসান, রায়গঞ্জ : কল-কারখানার বিষাক্ত বর্জ্যে ফুলজোড় নদীর পানি মারাত্মক দুষিত হওয়ায় ভেস্তে যেতে বসেছে রায়গঞ্জে সুপেয় পানি সরবরাহের চলমান প্রকল্প। এতে বিপুল অঙ্কের সরকারি অর্র্থ অপচয়ের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ প্রকল্পে নদীর পানি পরিশোধন করে পৌরবাসীর মধ্যে সুপেয় পানি সরবরাহের পরিকল্পনা রয়েছে। বাংলাদেশের ৩০টি পৌরসভায় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন প্রকল্পের আওতায় রায়গঞ্জ পৌরসভা এলাকায় প্রকল্পটি এখন চলমান। বাংলাদেশ সরকার, বিশ^ব্যাংক ও এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক যৌথভাবে এতে অর্থায়ন করেছে এবং জনস্বাস্থ্য ও প্রকৌশল অধিদপ্তর রায়গঞ্জ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাগেছে। সরেজমিনে গেলে পৌর মেয়র আব্দুল্লাহ আল পাঠান জানান, ফুলজোড় নদী তীরে পৌর এলাকার ২নং ওয়ার্ডে পালপাড়ায় চলছে এই প্রকল্পের কাজ। ইতোমধ্যেই এর ৭০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। পরিশোধিত পানি পাইপ লাইনের মাধ্যমে দুই হাজার পৌরবাসী পরিবারের মাঝে সরবরাহ করার কথা ছিল। কিন্তু নদীর উজানের বিভিন্ন কল-কারখানার নির্গত বিষাক্ত বর্জ্যে ফুলজোড় নদীর পানি মারাত্মক দুষিত হওয়ায় প্রকল্পটির উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন দুরূহ হয়ে পড়লো। এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরসহ ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান। জনস্বাস্থ্য ও প্রকৌশল অধিদপ্তর রায়গঞ্জের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেহেদী হাসান বলেন, নদীর পানি উত্তোলন করে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্টের (ডাবিøউ টি পি) মাধ্যমে সুপেয় করে পাইপ লাইনে সরবরাহ করার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু সম্প্রতি নদীর পানি এত বেশি দুষিত হয়ে পড়েছে যে নদীর মাছসহ বিভিন্ন জলজপ্রাণী মরে ভেসে উঠছে। এই পানি আমাদের এই ট্রিটমেন্ট প্লান্টের মাধ্যমে সুপেয় করা সম্ভব নয়। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পানি সরবরাহ এবং স্যানিট্রেশনের ড্রেন ও পয়ঃ নিষ্কাশন প্রকল্প বাবদ মোট বরাদ্দ হয়েছে ৩০ কোটি টাকা। এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে। শেষ হবে ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মাসে। নদীর পানি দুষণের ব্যাপারে যোগযোগ করলে পরিবেশ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক রাজিয়া সুলতানা জানান, খবর পেয়ে তিনি ফুলজোড় নদী সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন এবং বিষাক্ত পানির ‘স্যাম্পল’ সংগ্রহ করে ল্যাবে পরীক্ষা করতে দিয়েছেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নদীর পানি দুষণ রোধে যথা শীঘ্র প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে।

গুরুদাসপুরে গ্রামবাসী বন্দী
গুরুদাসপুর প্রতিনিধিঃ নাটোরের গুরুদাসপুরে পিতাপুত্রের দাপটের কারণে বৃটিশ আমলের রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে পারছেনা গ্রামবাসী। উপজেলার বিয়াঘাট চরপাড়া গ্রামের আলম হোসেন ও তার ছেলে এমদাদুল হক মিলনের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন তারা। ফলে মাঠের মধ্যে দিয়ে অনেক পথ ঘুরে আসতে চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছেন এলাকাবাসী। এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে গ্রামবাসী গণ স্বাক্ষর করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায়ের কার্যালয়ে গিয়ে সরাসরি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।
সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে প্রতিবেশি সাইদুল ইসলাম, বিমাত আলী সহ ভুক্তভোগীরা জানান, চরপাড়া গ্রামের প্রধান সড়ক হতে জামালের বাড়ির কাছ দিয়ে বৃটিশ আমলের দীর্ঘ এক হাজার ফুট কাঁচা রাস্তা রয়েছে। পঞ্চাশ বছর ধরে ওই রাস্তা দিয়ে মাঠের ফসল নিয়ে গরুর গাড়ী ও ভ্যানগাড়ীতে যাতায়াত করে আসছেন গ্রামবাসী। শুধু তাই নয়, মাঠের ফসল আনা নেওয়া, গোরস্থানে মৃত ব্যক্তিকে দাফন করা এবং বিয়াঘাট বাবলাতলা সরকারি প্রাইমারি স্কুলে যাওয়া আসার একমাত্র পথও এটি। অভিযুক্ত পিতাপুত্রের নেতিবাচক কর্মকান্ডকে সমর্থন না করায় যাতায়াতের একমাত্র পথটিকে পুজি করে ওই গ্রামের সাধারণ মানুষকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন তারা।

সিংড়ায় আ’লীগ নেতা কারাগারে

সিংড়া প্রতিনিধি : নাটোরের সিংড়া উপজেলার চৌগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আজহার আলী হত্যা মামলার আসামী আওয়ামী লীগ নেতা রবিউল ইসলাম রবিকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত। সোমবার (২৯ মে) দুপুরে নাটোরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ (প্রথম) আদালতে হাজির হন তিনি। এসময় বিচারক মোছা কামরুন্নাহার রবির জামিন বাতিল করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। রবিউল ইসলাম রবি এক সময় যুবদলের রাজনীতি করলেও পরবর্তীতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হন। এছাড়া রবিউল ইসলাম রবি ২০২০ সালের ৬ সেপ্টেম্বর চৌগ্রাম বেলঘড়িয়া এলাকার শিল্পী খাতুন হত্যা মামলার প্রধান আসামী। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে হত্যাসহ কয়েকটি মামলা রয়েছে।
আদালত সূত্র জানায়, ২০০৬ সালে সিংড়া উপজেলার চৌগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আজহার আলীকে হত্যার পর মাঠের ভেতর ফেলে রেখে যায় সন্ত্রাসীরা। পরবর্তীতে খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ৬ নম্বর আসামী করা হয় রবিউল ইসলাম রবিকে।

ধুবিল ইউনিয়ন চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের দাবি

স.ম. আব্দুস সাত্তার, রায়গঞ্জ : সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে ৩ নম্বর ধুবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান তালুকদারকে বরখাস্তের দাবি জানিয়েছেন ইউপি সদস্যরা। গত বুধবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৃপ্তি কনা মন্ডলের কার্যালয়ে ওই পরিষদেও ৮ জন ইউপি সদস্য স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে এই বরখাস্তের দাবি জানান হয়৷ সুত্রে জানা যায়, ইউপি সদস্যদের স্বাক্ষর জালিয়াতি, সাদা অলিখিত চেকে স্বাক্ষর করে এবং সদস্যদের না জানিয়ে ভুয়া সভা দেখিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থ আত্মসাৎ করে আসছেন তিনি। অভিযোগে ইউপি সদস্যরা আরও জানান ইতিপূর্বে গত ১৬ এপ্রিল তারিখে আমরা তার এ সকল কার্যকলাপ বন্ধের দাবিতে ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ করলে চেয়ারম্যানের নিজস্ব অনুগত বহিরাগত লোকজন দিয়ে নানা রকম ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে আসছে।এ কারণে আবারও বুধবার দুপুর ২ টার দিকে ইউএনও বরাবর ওই চেয়ারম্যানের বরখাস্ত ও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য লিখিত দাবি জানান বলে ওই সূত্রে জানা যায়।এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৃপ্তি কণা মন্ডল এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি পত্র প্রাপ্তির কথা স্বীকার করেন।
৫০ লাখ ছেলে-মেয়েকে দক্ষ
জনশক্তিতে গড়ে তোলা হবে: পলক

সিংড়া প্রতিনিধি : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, দেশে ৫০ লাখ ছেলে-মেয়েদের আধুনিক কম্পিউটার শিক্ষায় সুশিক্ষিত করে দক্ষ জনশক্তিতে গড়ে তোলা হবে। বুধবার (২৪ মে) দুপুরে সিংড়া উপজেলা হলরুমে বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০২৩ বিভাগীয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আমাদের কর্মক্ষম তরুণ-তরুণীর ক্ষমতা বেশি। আমরা যদি তাদের দক্ষকর্মী হিসেবে গড়ে তুলতে পারি, তাহলে তারা বিদেশে গিয়ে কাজ করতে পারবে। এছাড়াও দেশে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নিজেকে দক্ষভাবে গড়ে তুলে বাড়িতে বসে অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবে। দেশের অগ্রযাত্রায় ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে।তিনি আরও বলেন, আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে আমাদের দেশে ৭০ হাজার ছেলে-মেয়ে বিভিন্ন রকম ক্ষেত্রে কাজ করছে। যা বিগত ১৪ বছর আগে বাংলাদেশের মাটিতে এ কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রগুলো ছিল না।

এবারের বাজেট বাস্তবায়নেও সরকার ব্যর্থ হবে না : অর্থমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট : অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বিগত বাজেটে দেওয়া সব প্রতিশ্রæতি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। সরকার প্রতিবারই প্রণীত বাজেট বাস্তবায়ন করে থাকে। এবারের বাজেট বাস্তবায়নেও সরকার ব্যর্থ হবে না।
অগত শুক্রবার (২ জুন) বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা অতীতে ফেল করিনি, আগামীতেও করব না। এদেশের মানুষ আমাদের সবকিছু, ইনশাআল্লাহ আমরা বিজয়ী হবোই হব।এক প্রশ্নের তিনি বলেন, আমি আমার এ সমস্ত কমিটমেন্ট সবগুলো প্রয়োগ করেছি। আমি দুই কোটি মানুষের চাকরির ব্যবস্থার কথা বলেছিলাম। দুই কোটি ৪৫ লাখ মানুষের চাকরির ব্যবস্থা করেছি। কর্মসংস্থান তৈরির জন্য আমরা কাজ করি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা মসিউর রহমান, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার, অর্থ বিভাগের সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন এবং অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব শরিফা প্রমুখ। সূত্র ঃ কালের কণ্ঠ।

স্বজনতোষী ও দুর্নীতিবান্ধব বাজেট – মান্না

ডেস্ক রিপোর্ট : নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, প্রস্তাবিত বাজেটের সঙ্গে দেশের অর্থনৈতিক বাস্তবতার কোনো সঙ্গতি নেই। এটি স্বজনতোষী ও দুর্নীতিবান্ধব বাজেট। এতে দেশের চলমান অর্থনৈতিক সংকট সমাধানের কোনো উদ্যোগ বা দিকনির্দেশনা নেই। এই বাজেট বাস্তবায়ন করাও সম্ভব নয়। গত শুক্রবার দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাকিব আনোয়ার স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।
মান্না বলেন, বাজেটে আইএমএফ এর শর্তের ব্যাপারে পরিষ্কার করে কিছু বলা হয়নি। দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি রোধেরও কোনো পরিকল্পনা উল্লেখ করা হয়নি। অর্থনৈতিক সংস্কারের বিষয়েও পরিষ্কার বক্তব্য নেই। জিডিপি প্রবৃদ্ধি, মূল্যস্ফীতি ও প্রবাসী আয়ের যে প্রাক্কলন করা হয়েছে তা কল্পনাপ্রসূত। আয় না থাকলেও টিআইএনধারীদের ২ হাজার টাকা পরিশোধের যে বিধান রাখা হয়েছে, তা জনগণের পকেট কাটার আরেকটি উদ্যোগ। বাজেটে মূল্যস্ফীতির লাগাম টানার কোনো পরিকল্পনা নেই।গণতন্ত্র মঞ্চের এ শীর্ষ নেতা বলেন, সরকার যেখানে রিজার্ভ সংকটের কারণে কয়লা, তেল আমদানি করতে পারছে না; যে কারণে বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো বন্ধ করতে হচ্ছে, সেখানে রিজার্ভ বাড়ানোর উদ্যোগ না নিয়ে নতুন করে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের পরিকল্পনার কথা জানানো হয়েছে। লুটপাটের অবারিত সুযোগ তৈরি করতেই এইসব প্রকল্প গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সরকার। ডাকসুর সাবেক এ ভিপি বলেন, এটা একটা স্বজনতোষী বাজেট। সরকার এবং সরকারি দল সংশ্লিষ্টদের দুর্নীতি ও লুটপাটের সুযোগ তৈরি করতে এ রকম বাজেট উপস্থাপন করেছে। এই সরকারের কাছে এর চেয়ে বেশি কিছু আশা করাও যায় না। কারণ এ সরকার জনগণের সরকার নয়। এই সরকার ক্ষমতায় থাকলে জনগণের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন হবে না।সূত্রঃ সমকাল।

বাজেটে বাস্তবতাকে বিবেচনায় নেওয়া হয়নি– সিপিডি

ডেস্ক রিপোর্ট : আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের আর্থিক কাঠামোকে ‘অলীক’ বলে আখ্যায়িত করেছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ (সিপিডি)। সংস্থাটি বলেছে- বাজেটের আয় ও ব্যয় কাঠামো নির্ধারণের ক্ষেত্রে চলতি অর্থবছরের বাস্তবায়ন অভিজ্ঞতাকে বিবেচনায় নেওয়া হয়নি। কাঠামোগত এ দুর্বলতার কারণে বাজেটের বাস্তবায়ন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে।
গত শুক্রবার বেলা ১১ টায় রাজধানীর গুলশানের হোটেল লেকশোরে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বিশ্লেষণে এ মতামত দিয়েছে সিপিডি। সংবাদ সম্মেলনে বাজেট বিশ্লেষণ উপস্থাপন করেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন। সংস্থার সম্মানীয় ফেলো অধ্যাপক মোস্তফিজুর রহমান, গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেমসহ সিপিডির গবেষকরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। সিপিডি বলেছে, সার্বিক অর্থনীতি ক্রমান্বয়ে দুর্বল হচ্ছে। স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ- এসব বিবেচনায় যে ধরনের পদক্ষেপ প্রয়োাজন ছিল সেগুলো বিবেচনা করা হয়নি বাজেটে। সংস্থাটি আরও বলেছে, সামষ্টিক অর্থনীতির অনুমিত প্রক্ষেপণের সঙ্গে বাস্ততার কোনো মিল নেই। অর্থনৈতিক সংস্কারের কোনো প্রতিফলন নেই। বিভিন্ন চলক উচ্চাকাঙ্খী। মূল্যস্ফীতি প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, চলতি অর্থবছরের তুলনায় ব্যাপকহারে কমে ৬ শতাংশে নেমে আসবে, যেখানে চলতি গোটা অর্থবছরজুড়ে মূল্যস্ফীতি উপরে ছিল। আসলে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে বাজেটে কোনো পদক্ষেপ নেই। আগামীতে মূল্যস্ফীতি আরও বেড়ে যেতে পারে। সূত্রঃ সমকাল।

তাড়াশ পৌরসভার নির্বাচন ১৭ জুলাই
স্টাফ রিপোর্টার : সিরাজগঞ্জের তাড়াশ পৌরসভার প্রথম নির্বাচন হতে যাচ্ছে আগামী ১৭ জুলাই। দেশের অন্যান্য জেলার ৮ পৌরসভার নির্বাচনের সাথে ওই দিন তাড়াশ পৌরসভার নির্বাচন হবে বলে তফশীল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি) । গত ৩১ মে নির্বাচন কমিশনের জারি করা এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে উক্ত খবর জানানো হয়েছে। তফশীল অনুযায়ী ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের(ইভিএম) মাধ্যমে ১৭ জুলাই সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৮ জুন, বাছাই ১৯ জুন, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিবস ২৫ জুন এবং ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ১৭ জুলাই। এদিকে তাড়াশ পৌরসভার প্রথম নির্বাচন বলে এটাকে ঘিরে সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ উদ্দীপনা শুরু হয়ে গেছে। তারা বিভিন্নভাবে অগ্রিম প্রচার-প্রচারনা শুরু করে দিয়েছেন। আরম্ভ হয়েছে দলীয় মনোনয়ন পেতে মীমাহীন দৌড়ঝাঁপ।

বাজেটে বিড়ি আরো সস্তা হবে

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রস্তাবিত বাজেটে সিগারেটের মূল্যস্তর বাড়ানো হয়েছে। একটি স্তরে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে সিগারেটের দাম বাড়তে পারে। অন্যদিকে বিড়িতে নতুন করে কর না বাড়ানোয় পণ্যটির দাম নাও বাড়তে পারে। ফলে বিড়ি বিক্রি বেড়ে যেতে পারে। তা ছাড়া যে হারে সিগারেটের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে, তা যথেষ্ট নয় বলে মনে করছে ধূমপান নিরুৎসাহিত করতে কাজ করা সংগঠনগুলো। তাদের ভাষ্য, দেশে নিত্যপণ্যের দাম যেভাবে বেড়েছে, তার তুলনায় সিগারেটের দাম কম বাড়িয়ে অর্থমন্ত্রী বরং পরোক্ষভাবে ধূমপানে উৎসাহী করেছেন।এ পদক্ষেপের কারণে তরুণরা তামাক ব্যবহারে বিশেষভাবে উৎসাহিত হবে, তামাক ব্যবহারজনিত মৃত্যু ও অসুস্থতা বাড়বে এবং সরকারের স্বাস্থ্য ব্যয় বাড়বে।সূত্রঃ সমকাল।

তাড়াশে বেড়েছে চা এর দাম
প্রতিদিন গড় বিক্রি অর্ধ লক্ষাধিক টাকা
স্টাফ রিপোর্টার ঃ গত সপ্তাহে প্রতি কাপ চা ৫ টাকা থেকে ৬ টাকা বাড়িয়ে দাম পূননির্ধারন করেছে তাড়াশ সদরের চা-বিড়ি দোকান মালিকেরা। প্রতি পিস খিলি পানের দামও অনুরুপ বাড়ানো হয়েছে যা এখন ৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। চা বিক্রেতারা জানায়, দুধ, আদা,চিনি ও মসলার মূল্য বৃদ্ধির কারণে তারা এই দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে র বা লাল চা এর দাম ১ টাকা বাড়লেও এক কাপ দুধ চা এর মূল্য ৮ থেকে ১০টাকা পর্যন্ত নেয়া হচ্ছে।
জানতে চাইলে তাড়াশ বাস স্ট্যান্ডের জনৈক চা স্টল দোকানী সাজেদুল ইসলাম জানান, বাজার সহ তাড়াশ সদর গ্রামে সর্বমোট ১১৫টি ছোট-বড় চা স্টল রয়েছে। চা-পান মিলে প্রতিটি দোকানে ৫ শ টাকা বিক্রি হলে প্রতিদিন প্রায় ৫৮ হাজার টাকা গড় বিক্রি হয়ে থাকে। একটা বাজারেই এত চা স্টল কেন, জবাবে ওই দোকানী মন্তব্য করেন, চা স্টলে কম পূঁজিতে বেশী লাভ এবং চা-পানকারীর সংখ্যা আগের চেয়ে দিনদিন বেড়ে চলার প্রেক্ষাপটে চা স্টলের সংখ্যাও বেড়ে চলেছে।

‘বাজেট ঘোষণা হলেই দাম বাড়ায় ব্যবসায়ীরা

ডেস্ক রিপোর্ট : নতুন বাজেট উত্তাপ ছড়াচ্ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারে। ২০২৩-২৪ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপনের পর ইতিমধ্যেই বাড়তে শুাং করেছে মাছ-মাংস, ডিম, সবজিসহ বিভিন্ন পণ্যের দাম। ফলে বেশ বিপাকে পড়তে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাদের। গত শুক্রবার ২ জুন রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এক সপ্তাহ আগে ৩০ টাকায় বিক্রি হওয়া শসার দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়। ২০ টাকার আলুর কেজি এখন ৪৫ টাকা। পেঁয়াজের কেজি পৌঁছেছে ৯০ টাকায়। প্রতিকেজি কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৭০ টাকায়। সূত্রঃ কালের কণ্ঠ
তাড়াশ পৌরসভার মেয়র পদে
জননন্দিত চেয়ারম্যান বাবুল শেখ জনপ্রিয়তার শীর্ষে

মোঃ মুন্না হুসাইন তাড়াশ

আগামী ১৭ জুলাই দেশের বিভিন্ন জেলার কয়েকটি পৌরসভার সাথে তাড়াশ পৌরসভার প্রথম নির্বাচন হতে যাচ্ছে।এমন খবর জানার পরপরই সিরাজগঞ্জের তাড়াশে নবগঠিত তাড়াশ পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। তাদের মধ্যে নবগঠিত তাড়াশ পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রত্যাশী তৃণমূল রাজনীতিতে পরীক্ষিত উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও তাড়াশ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাবুল শেখ। তাকে ঘিরে নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত। ছাত্র রাজনীতির মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে হাতেখড়ি। আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথের লড়াকু সৈনিক ও তুখোর তরুণ নেতৃত্ব হিসেবে তিনি এলাকায় ব্যাপক পরিচিত। পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড তাকেই মনোনীত করবে বলে আশাবাদী তিনি ও তার সমর্থকরা। তাড়াশ পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী মেহনতি মানুষের জননন্দিত চেয়ারম্যান বাবুল শেখ তারুণ্যের প্রতীক। বাবুল শেখের রয়েছে বন্যার্ঢ রাজনৈতিক পরিচয়, স্কুল জীবন থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতির মধ্যে দিয়ে তার রাজনৈতিক জীবনের শুরু। তিনি ১৯৯৮-৯৯ সালে তাড়াশ ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির সদস্য ছিলেন। ১৯৯৬-২০০৩ সাল পর্যন্ত উপজেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক, ২০০৩ সালে যুগ্ন আহবায়ক উপজেলা ছাত্রলীগের, ২০০৩-২০১৩ সাল পর্যন্ত সততা ও নিষ্টার সাথে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তাড়াশ সদর ইউনিয়ন পরিষদে নৌকা প্রতিকে বিজয়ী হয়ে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন।
এছাড়া ১৯৯০ সালে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন, ৯৬ সালে ১৫ই ফ্রেব্রæয়ারী খালেদা জিয়ার প্রহসনমুলক নির্বাচন প্রতিহত করতে গিয়ে মিথ্যা মামলা, হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। গত ২০০১ সালে ১লা অক্টোবর বিএনপি-জামায়াতের ভোট ডাকাতির নির্বাচনের পর তাদের হাতে নির্যাতন ও হামলা-মামলায় নাজেহাল হয়েছেন তিনি।
¯œাতোকত্তীর্ণ সুশিক্ষিত চেয়ারম্যান বাবুল শেখ, করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে মানবিক সহায়তা, চাল,ডাল, শুকনা খাবার, শিশু খাদ্য, ভিজিডির চাল নিজের অর্থায়নে মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌছে দিয়েছেন। কর্মহীন মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করেছেন। অটিষ্টিক শিশু, ৩য় লিঙ্গ,কুলি শ্রমিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে করেছেন বিভিন্ন সহায়তা। আর করোনাকালীন সময়ে সর্বদা কর্মহীন সাধারণ জনগনের বাড়ি বাড়ি খাদ্য সহায়তা পৌছে দেয়াসহ বিভিন্নভাবে তাদেরকে সহযোগীতা করায় চেয়ার‌্যান বাবুল শেখ বিভিন্ন সংগঠন থেকে করোনা যোদ্ধা হিসেবে পেয়েছিলেন উপাধি ও পুরস্কার। তাই তাড়াশ উপজেলায় তাকে করোনা যোদ্ধা ও মানবিক চেয়ারম্যান হিসেবেই সবাই চিনেন।
এছাড়া ২০১৬ সালে তাড়াশ সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হয়ে চেয়ারম্যান হিসেবে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়ে বাবুল শেখ অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে নিবেদিতভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের নির্বাচিত সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান ও রাজপথের পরীক্ষিত সৈনিক হিসেবে পরিচিত বাবুল শেখ এবারও পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে আশাবাদী নেতাকর্মীরা। তাড়াশ পৌরসভা নিবার্চনে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী বাবুল শেখ বলেন, চেয়ারম্যান হয়ে মানুষের পাশে যেভাবে দাড়িয়েছি এবং দলীয় লোকজনদের সাথে নিয়ে দেশরতœ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করতে সর্বদা মাঠে কাজ করছি। আমার ধারণা আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন পেলে আর জনগন আমাকে নির্বাচিত করলে আমি বিশ্বাস করি পৌর নাগরিকদের সাথে দূরদর্শী ও সুদুরপ্রসারী টেকসই পরিকল্পনার মাধ্যমে তাড়াশে একটি মডেল পৌরসভা উপহার দিতে পারবো।
প্রসঙ্গত, সুুদ, ঘুষ, দুর্নীতি, ও মাদকমুক্ত জবাবদিহিমূলক, অসাম্প্রদায়িক ডিজিটাল স্মার্ট তাড়াশ পৌরসভা গঠনে জনতার নেতা ও চেয়ারম্যান করোনাযোদ্ধা হিসেবে খ্যাত মো. বাবুল শেখ(বিএ)কে তাড়াশের পৌর মেয়র হিসেবে দেখতে চায় তাড়াশ পৌরসভার সন্মানিত আপামর জনতা। বাবুল শেখ বলেন, “ মানুষ মানুষের জন্য, সকল ধর্মের মানুষকে সেবা করাই আমার ধর্ম।”

তাড়াশে পুড়িয়ে দেয়া হল অবৈধ চায়না দোয়ারী জাল
সাব্বির আহম্মেদ,তাড়াশ : মৎস্য ভান্ডার খ্যাত চলনবিলের তাড়াশ উপজেলার নিচু অঞ্চলে বন্যার পানি প্রবেশের সাথে সাথে এক শ্রেণীর অসাধু মাছ শিকারীরা অবৈধ্য কারেন্ট ও চায়না দোয়ারী জাল দিয়ে ডিম ওয়ালা মা মাছ স্বীকারে মরিয়া হয়ে উঠেছে।ওই অবৈধ্য জাল জব্দ এবং ডিমওয়ালা মা মাছ রক্ষার্র্থে চলনবিলের তাড়াশ অঞ্চলে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৫০হাজার টাকা মুল্যের অবৈধ্য চায়না দোয়ারী জাল পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।গতকাল বুধবার তাড়াশ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মসগুল আজাদের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় চলনবিলের প্রাণ কেন্দ্র কুন্দইল ব্রীজ এলাকা থেকে বিশাল আকৃতির ১০টি অবৈধ চায়না দোয়ারী জাল জব্দ করা হয়। পরে জালগুলো তাড়াশ উপজেলা মৎস্য অফিস এলাকায় এনে স্থানীয় লোকজনের সামনে আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।
এ প্রসেঙ্গ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মশগুল আজাদ বলেন, অবৈধ চায়না দোয়ারী জাল দিয়ে এক শ্রেণীর অসাধু মাছ শিকারীরা এলাকার মা মাছ ও পোনা মাছ সহ সব ধরনের জলজ প্রাণী নিধন করে চলছে । তাই মা মাছ,পোনা মাছ ও জলজ প্রাণী রক্ষার্থে তাড়াশ উপজেলা মৎস্য অফিসের উদ্যোগে অসাধু মাছ শিকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

তাড়াশে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা
শাহজাহান আলী : সিরাজগঞ্জের তাড়াশে এক স্কুলছাত্রী অপহরণের দায়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রুবেল আহম্মেদসহ একই পরিবারের পাঁচজনের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা হয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের তাড়াশ থানায় মামলা করেন ওই স্কুলছাত্রীর মা।
জানাগেছে, ভাঙ্গুড়াড়া উপজেলার করতকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে প্রেম নিবেদনসহ প্রায়ই উত্যক্ত করতো নওগাঁ গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে রুবেল আহমেদ। গত বুধবার স্কুলে যাওয়ার পথে মেয়েটিকে অপহরণ করে রুবেল ও তার ভাই।করতকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইলিয়াস আহম্মেদ জানান, মেয়ে-ছেলে একই বিদ্যালয়ে একই শ্রেণিতে পড়তো। ছেলেটি বিদ্যালয় থেকে সম্প্রতি ছাড়পত্র নিয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার পর তাকে আর দেখা যায় না।উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইকবাল হোসেন রুবেল বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। আগেও রুবেলের বিরুদ্ধে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ উঠায় উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম জানান, থানায় মামলা হয়েছে এবং ভুক্তভোগীকে উদ্ধার ও আসামিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।
তাড়াশ খাদ্য গুদামে ঐতিহাসিক পুকুর চুরি
শাহজাহান আলী, তাড়াশ : সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইয়াসিন আলী ও গুদামের সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) কাওছার রহমানের বিরুদ্ধে অভ্যন্তরীণ আমন সংগ্রহে জালিয়াতির মাধ্যমে ৪০ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার দুই বছর পর অভ্যন্তরীণ অডিটে বিষয়টি ধরা পড়ায় নওগাঁ জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে প্রধান করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি তাদের তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছে নিশ্চিত করেছেন সিরাজগঞ্জ জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এস এম সাইফুল ইসলাম। তবে তদন্ত কমিটি গঠন হওয়ার পরপরই ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে তৎপর হয়ে উঠেছে ঘটনার সাথে জড়িতসহ খাদ্য ব্যবসায়ী একাধিক চক্র। তাড়াশ খাদ্য গুদাম সূত্র জানায়, ২০২১-২২ অর্থ বছরে অভ্যন্তরীণ আমন সংগ্রহের জন্য বরাদ্ধ দেওয়া হয় ৪৭৪ মেট্রিক টন। সে অনুযায়ী যথারীতি লক্ষমাত্রা অনুসারে আমন সংগ্রহ সম্পন্ন করা হয়। কিন্তু গোল বাধে আরো অতিরিক্ত দেড় শ টন আমন সংগ্রহ নিয়ে। সূত্র আরো জানায়, সে সময় তাড়াশ খাদ্য গুদামে কর্মরত (বর্তমানে পদ অবনমন হয়ে নাটোরের সিংড়া উপজেলার খাদ্য গুদামে খাদ্য পরিদর্শক পদে কর্মরত) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি এলএসডি) কাওছার রহমান, নিরাপত্তাকর্মী ফারুক মোল্লা, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. ইয়াসিন আলী ও স্থানীয় একটি খাদ্য ব্যবসায়ী চক্র মিলে বিধিবহির্ভূতভাবে অতিরিক্ত ৫০ জন কৃষকের বিপরীতে দেড় শ টন আমন সংগ্রহ দেখান। কিন্তু বাস্তবে তারা কোনো ধান সংগ্রহ না করেই প্রতি টন ২৭ হাজার টাকা দরে মোট ৪০ লাখ ৫০ হাজার টাকা তাড়াশ জনতা ব্যাংকের শাখা থেকে তুলে নেন। এ ছাড়া তাড়াশ খাদ্য গুদামের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুনীর্তির কারণে ২০২২ সালের ৭ নভেম্বর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, এলএসডি) কাওছার রহমানকে শাস্তিমূলক বদলি করা হয়। তার বিরুদ্ধে বর্তমানে বিভাগীয় একাধিক তদন্ত চলমান রয়েছে।সিরাজগঞ্জ জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এস এম সাইফুল ইসলাম বলেন, ঘটনার বিষয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর কর্তৃপক্ষ আইনানুগ ব্যবস্থা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

তাড়াশে জিয়াউর রহমানের ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

তাড়াশ প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সিরাজগঞ্জের তাড়াশে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষে কালো ব্যাজ ধারণ, কালো পতাকা উত্তোলন , ফাতেহা পাঠ, দরিদ্রদের মধ্যে খাদ্য ও বস্ত্রসামগ্রী বিতরণ করা হয়।
গত মঙ্গলবার ৩০ মে সকালে উপজেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে সভাপতি স.ম.আফসার আলীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আমিনুল রহমান টুটুল। এ সময় আরো বক্তৃতা করেন উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক সাইদুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক শাহাদাত হোসেন, সদস্য সচিব সাইফুল ইসলাম, ছাত্রদলের সদস্য সচিব শাহাদাৎ হোসেন।১৯৮১ সালের এই দিনে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে সেনাবাহিনীর কিছু বিপথগামী সদস্যের হাতে নির্মমভাবে নিহত হন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান।

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উপলক্ষে
তাড়াশে অবস্থান কর্মসূচি পালিত

বিশেষ প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস-২০২৩ উপলক্ষে তামাকের কর বৃদ্ধি, ই-সিগারেট নিষিদ্ধকরণ ও তামাক চাষ নিয়ন্ত্রণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। গত ৩০ মে মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে তাড়াশ প্রেসক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় “ তামাক নয়, খাদ্য ফলান ”। ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ (ডাবিøউবিবি) ট্রাস্ট ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের সহায়তায় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা পরিবর্তন তামাকের বিরুদ্ধে এ অবস্থান কর্মসূচির আয়োজন করে।
পরিবর্তন সংস্থার সভাপতি মুনসুর রহমান বাচ্চুর সভাপতিত্বে অবস্থান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. রাকিবুল ইসলাম। এছাড়াও বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত কর্মকার, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মশগুল আজাদ, সহকারী সমাজসেবা কর্মকর্তা জিএম মাকসুদুল আলম, নারী ও শিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক হোসনে আরা পারভীন লাভলী, সভাপতি মুনসুর রহমান বাচ্চু, আয়োজক সংস্থার পরিচালক আবদুর রাজ্জাক রাজু, কর্মসূচি পরিচালক গোলাম মোস্তফা প্রমূখ। এ সময় জনতার মাঝে তামাক সংক্রান্ত সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়। অবস্থান কর্মসূচি শেষে ওই দিন বিকালে স্থানীয় এনজিওমূহের পক্ষে জেলা প্রশাসক সমীপে লিখিত তামাক নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক এক স্মারকলিপি তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মেজবাউল করিমের নিকট হস্তান্তর করেন পরিবর্তন পরিচালক আবদুর রাজ্জাক রাজু।

তাড়াশে সেই এতিম কণ্যা স্বপ্নার
বিয়ে দিলেন আজিজ এমপি

তাড়াশ প্রতিনিধিঃ ২০১৯ সালের ২৫ এপ্রিল বৃস্পতিবার সকালে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নের পলাশী গ্রামে ইরি বোরো ধান কাটতে গিয়ে জমিতেই স্টোক করে মারা যান সিরাজুল ইসলাম। ওই দিন স্থানীয় সংবাদকর্মীদের ছাপানো নিউজ “ধান কাটতে গিয়ে- হিট স্টোকে মারা গেলেন কৃষি শ্রমিক সিরাজুল” “অসহায় দুই কন্যাকে নিয়ে মা রুপভান” অসহায়দের পাশে দাড়াতে বিত্তবানদের অনুরোধ সহ বিভিন্ন শিরোনামে নিউজ প্রকাশিত হয়। আর সেই নিউজের সুত্র ধরেই ২৭ তারিখ শনিবারে স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. মোঃ আব্দুল আজিজ স্ত্রী ডা. হাফিজা সুলতানাকে নিয়ে হাজির হয়ে দুই মেয়ের দায়িত্ব নিয়ে ওই পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দেন। এ সময় তার স্কুলপড়ুয়া দুই মেয়ে শাবনূর (১৬ ) ও স্বপ্নার (১৫) পড়াশুনা ও বিয়ের দায়িত্ব নিয়েছিলেন।দুই মাসের মাথায় ঘর নির্মাণ ও ঘরের সমস্ত ফার্নিচার কিনে দেন।
এরপর গত চার বছরে লেখাপড়ার ব্যয়ের পাশাপাশি ঈদসহ বিভিন্ন উৎসবে সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. মোঃ আব্দুল আজিজ স্ব শরীরে হাজির হয়ে আর্থিক সহযোগীতা, ঈদ সামগ্রী বিতরণসহ সুখ দুঃখ ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। ্এরপর গত বৃহস্পতিবার ১ জুন স্বপ্না (১৯) এর বিয়ে বারুহাস ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ মাসুদের মধ্যস্থতায় পারিবারিকভাবে ঠিক হলে ২ জুন রাত ৯.৩০ টার সময় সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. মোঃ আব্দূল আজিজ চলে আসেন বিয়ে বাড়ী। সেখানে বিয়ে করতে আসা বারুহাস ইউনিয়নের সরাবাড়ী গ্রামের মোঃ রওশন আলীর ছেলে মোঃ আরিফের হাতে এতিম কন্যা স্বপ্নাকে তুলে দেন।এ ব্যাপারে সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী বিধাব রূপবান খাতুন বলেন, এমপি আজিজের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। তিনি আরো জানান আমার ঘর ছিল না, খাবার ছিল না, এতো দুরাবস্থা ছিল। এমপি সাহেব আমার সব কিছু ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। আজ মেয়ে স্বপ্নার বিয়ের সমস্ত দায়দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে কন্যা দায় থেকে মুক্তি দিয়েছেন। এটি কখনো ভাবিনি। আল্লাহর কাছে দোয়া করি, উনি যেন ভালো থাকেন। এভাবেই মানুষের সেবা করে যেতে পারেন।

তাড়াশে নৌকা তৈরীতে ব্যস্ত কারিগর

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় নৌকা তৈরির ব্যস্ততা বেড়েছে চলন পাড়ের নৌকার কারিগরদের। তাড়াশ উপজেলার চলনবিল পারের নৌকার কারিগররা বর্ষার মৌসুমকে কেন্দ্র করে নৌকা তৈরীর জন্য ব্যস্ত সময় পার করছেন। শুরু হয়েছে হালকা-মাঝারি-ভারি বৃষ্টি। বর্ষার প্রবল বর্ষণে প্রায় প্রতি বছরই চলন বিলে বৃষ্টিতে নিম্নাঞ্চল বন্যায় প্লাবিত হয়। বর্ষার আগমনের চলনবিলের নৌকার মাঝি, জেলে ও চরের বাসিন্দারা শুরু করে আগাম প্রস্তুতি। এই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে চলনবিলের তীরবর্তী এলাকাগুলোতে চলছে নৌকা তৈরির ধুম। চলছে পুরোনো নৌকা মেরামতের কাজও। প্রতিবছর বর্ষা আসার আগেই চলনবিল র্তীরবর্তী গ্রামগুলোতে শুরু হয় এই নৌকা তৈরির কাজ।
এ সময়টাতে নৌকার কারিগরদের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। ৪ টন ধারণ ক্ষমতার নৌকা মেরামতে বর্তমান সময়ে ১০-১৫ হাজার টাকা খরচ হয়। একই নৌকা নতুন করে বানাতে ৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হয়। ৯টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন নৌকা তৈরিতে লক্ষাধিক টাকা খরচ হয়। প্রতি হাত নৌকা মেরামতে ১০০ টাকা দিতে হয়। এভাবে প্রতিটি বড় নৌকা মেরামতে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা কারিগরদের মজুরি দিতে হয়। এমনকি চলতি মৌসুমে নৌকা মেরামত করে যাওয়ার সময় কারিগরদের আগামী মৌসুমের জন্য অগ্রিম টাকাও প্রদান করতে হয়।

উল্লাপাড়ায় নির্বিচারে গাছ কর্তন

উল্লাপাড়া প্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় সরকারী নীতিমালা না মেনে গয়হাট্টা সালেহা ইসহাক উচ্চ বিদ্যালয়ের বড় ছোটো ১০টি ইউক্যালিপট্যাস গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। গত মঙ্গলবার (৩০ মে) সকালে বিদ্যালয়ের নিজস্ব পুকুর চালায় থাকা এসব গাছ কাটা হয়। গাছগুলো ব্যবসায়ীর কাছে বেচার পর তা কাটা হয়েছে।জানা গেছে উল্লাপাড়া উপজেলা নিবার্হী অফিসার (ইউএনও) মোঃ উজ্জল হোসেনের কাছে মঙ্গলবার দুপুর পর এলাকার লোকজন অভিযোগ করেছেন, বিদ্যালয়টির ব্যবস্থাপনা কমিটি ও প্রধান শিক্ষক সরকারী নীতিমালা না মেনে গাছগুলো বিক্রি করে দিয়েছেন। প্রায় পনেরো বছর আগে গাছগুলো লাগানো হয়।বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম জানান, এসব গাছ বিদ্যালয় থেকে লাগানো হয়েছিল। গাছগুলো পুকুর চালার পাশের জমির মালিকদের মধ্যে পড়ায় ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্তে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। গাছগুলো বিক্রি বাবদ টাকা বিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজে ব্যয় করার জন্য রেজুলেশন করা হয়েছে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ কে এম শামছুল হক জানান, তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনা পেয়েছেন বিদ্যালয়টির গাছ কাটা বিষয়ে। তিনি দ্রæত তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করবেন।

ভাঙ্গুড়া পৌর সভার বাজেট ঘোষণা

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি: পাবনার ভাঙ্গুড়া পৌরসভার ২০২৩-২৪ অর্থ বছরের ২৪তম উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। অগত বৃহস্পতিবার পৌর সভার আয়োজনে পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে এই বাজেট ঘোষণা করেন পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল।
বাজেটে পৌরসভার বিভিন্ন রাজস্ব উন্নয়ন খাতে প্রস্তাাবিত আয় ধরা হয়েছে ৫ কোটি ৬২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা । বিভিন্ন উন্নয়নমূলক খাতে প্রস্তাবিত আয় ধরা হয়েছে ৭ কোটি ৯৫ লক্ষ টাকাসহ সর্বমোট আয় ধরা হয়েছে প্রায় ১৩ কোটি ১৬ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা । রাজস্ব খাতে সমাপনী স্থিতি দেখানো হয়েছে ৪০ লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা। পৌরসভার বিভিন্ন রাজস্ব খাতে প্রস্তাবিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৫ কোটি ২১ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা এবং বিভিন্ন খাতে প্রস্তাবিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৭ কোটি ৯৫ লক্ষ টাকা সহ মোট ১৩ কোটি ১৬ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা। বাজেটে উন্নয়ন ও পৌরসভার জনকল্যাণ সাধন নাগরিক সুবিধা ও উন্নয়নমূলক কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য এই বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে । ২৪ তম বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পাবনা ৩ আসনের সংসদ সদস্য ও ভূমি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতিআলহাজ্ব মো. মকবুল হোসেন।

শাহজাদপুরে গোখাদ্যে ভেজাল
ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা
শাজহাদপুর উপজেলা প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার সরিষাকোল বাজারে গত মঙ্গলবার (৩০ মে) গো-খাদ্যে ভেজাল মিসানোর জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালতে ভাই ভাই ট্রেডার্সে’র দোকান মালিক দূর্গাদহ গ্রামের আক্কাছ সত্তনারায়নের ছেলে সুশীলকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে আদায় করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন শাহজাদপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট লিয়াকত সালমান।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডাঃ মোঃ বিল্লাল হোসেন ও ভেটেরিনারী সার্জন ডাঃ মাহফুজুর রহমান।জনসার্থে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।
সিংড়ায় মন্দিরে অনুদান প্রদান

সিংড়া প্রতিনিধি :নাটোর জেলা আ’লীগের সদস্য, সিংড়া পৌর আ’লীগের সাবেক সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম শফিক বলেছেন, ‘অসা¤প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে আওয়ামী লীগ সরকারের কোনো বিকল্প নেই। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে এ দেশের মুক্তিকামী সব মানুষ একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছে।’ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব মানুষের নিরাপদ আবাসভূমি। এই দেশ আমাদের সকলের। বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য সা¤প্রদায়িক স¤প্রীতির বন্ধন অটুট রেখে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হবো।বুধবার (৩১ মে) দুপুরে সিংড়া উপজেলা কেন্দ্রীয় মন্দিরের হরিবাসর কমিটির কাছে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে নগদ ৫০ হাজার টাকা অনুদান দেয়ার সময় এসব কথা বলেন তিনি।

সিংড়ায় আদিবাসীরা পেল হাঁসের ঘর
সিংড়া প্রতিনিধি ঃ নাটোরের সিংড়ায় সমতল ভূমিতে বসবাসরত অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর আর্থসামাজিক ও জীবন মানোন্নয়নের লক্ষে সমন্বিত প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় দুই শতাধিক ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী পরিবারের মাঝে হাঁসের ঘর ও দশজন ঘাসচাষী খামারির মাঝে ৫ হাজার টাকা করে অনুদান বিতরণ করা হয়েছে।বুধবার (৩১ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেনারি হাসপাতাল। পরে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী পরিবারের মাঝে হাঁসের ঘর বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহমুদা খাতুন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ কে এম ইফতেখারুল ইসলাম, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমিনুর রহমান, ভেটেরিনারি সার্জন রকিবুল হাসান সুজন, উপ-সহকারি প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা দীপক কুমার সরকার প্রমূখ।

সিংড়ায় বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস পালিত
সিংড়া প্রতিনিধি ঃ “তামাক নয়, খাদ্য ফলান” এই প্রতিপাদ্যেকে সামনে রেখে সারাদেশের মত নাটোরের সিংড়ায় নানা আয়োজনে পালিত হয়েছে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস।বুধবার (৩১ মে) বেলা ১১টায় দিবসটি পালন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে একটি র‌্যালি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা প্রশাসনিক কমপ্লেক্স ভবনে এসে শেষ হয়।
উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদা খাতুনের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম শফিক। এসময় আরও বক্তব্য দেন ভাইস চেয়ারম্যান কামরুল হাসান কামরান, শামীমা হক রোজী, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আল ইমরান, উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ কে এম ইফতেখারুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাইফুল আলম, উপজেলা প্রকৌশলী আহম্মেদ রফিকসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

সিংড়ায় জিয়াউর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী

সিংড়া প্রতিনিধিঃ নাটোরের সিংড়ায় আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের মধ্য দিয়ে শহীদ প্রেসিডেন্ট, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৪২ তম শাহাদাত বার্ষিকী পালন করেছে উপজেলা ও পৌর যুবদল।বুধবার (৩১ মে) বিকেল সাড়ে ৫টায় উপজেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে এ কর্মসূচি পালন করেন দলীয় নেতাকর্মীরা।এসময় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান হাবিবের সভাপতিত্বে সদস্য সচিব এম এ মালেক ও পৌর যুবদলের আহ্বায়ক এড. নাজমুল হকের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক এড. মজিবুর রহমান মন্টু।
প্রধান বক্তার বক্তব্য দেন একাদ্বশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব দাউদার মাহমুদ।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পৌর বিএনপির সদস্য সচিব তায়েজুল ইসলাম, যুগ্ম আহ্বায়ক বোরহান উদ্দিন বাবু প্রমূখ।

গুরুদাসপুরে বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস পালিত
আবুল কালাম আজাদঃ‘ তামাক নয়, খাদ্য ফলান,’ প্রতিপাদ্য বিষয়ে নাটোরের গুরদাসপুর উপজেলায় বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস উপলক্ষে মানব বন্ধন, স্বারকলিপি প্রাদান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বাংলাদেশ তামাক বিরধী জোট, বেসরকারি সংস্থা বিলচলন ডেভেলপমেন্ট সার্ভিস সেন্টার (বিডিএসসি), আরডিও , পিএসকেএস এবং চলনবিল প্রেসক্লাবের উদ্যোগে বুধবার ( ৩১ মে) বেলা সাড়ে ১১ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রাবনী রায়কে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। পরে উপজেলা অফিস পাড়ায়, রেস্টুরেন্টে, এবং পথচারিদের মাঝে লিফলেট বিতরণ শেষে পৌর সদরে থানা মোড় শাপলা চত্বরে তামাকের কর বৃদ্ধি,ই -সিগারেট নিষিদ্ধকরণ ও তামাক চাষ নিয়ন্ত্রণের দাবীতে অবস্থান কর্মসূচি ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। অতঃপর চলনবিল প্রেসক্লাব কার্যালয়ে বিডিএসসির নির্বাহী পরচালক এস এম মজিবুর রহমান মজনুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা প্রবিন সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদ, সাধারন সম্পাদক এমদাদুদুল হক, সাংবাদিক আলহাজ্ব শহিদুক ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী, আরডিও র নির্বাহী পরিচালক, জাকির হোসেন এবং পিএসকেএস এর সভাপতি বাজিত উল্লাহ , সাংবাদিক আখলাক উজ্জামান , আতিকুর রহমান ও মিজানুর রহমান।

ভাঙ্গুড়ায় শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক আটক

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি: পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ১১ বছর বয়সী প্রথম শ্রেণীর এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে শাহজাহান আলী (৫৫) নামের এক জনকে আটক করেছে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ। শাহজাহান আলী ভাঙ্গুড়া পৌরসভার সরদারপাড়া এলাকার বাদপড়া মহল্লার মৃত হারানের ছেলে।জানা যায়, গত বুধবার (৩১ মে) সকাল ৭ টার দিকে শিশু ছাত্রী নিজ বাড়ি হতে ভাঙ্গুড়া বাজারে পেন্সিল কেনার জন্য যাচ্ছিল। এমন সময় লম্পট শাহজাহান মেয়েটিকে একা পেয়ে জোর করে ভাঙ্গুড়া রেল ব্রিজের নিচে নিয়ে গিয়ে শিশুটির মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। এ সময় পথচারীরা দেখতে পেয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। সুযোগ বুঝে ধর্ষক শাহজাহান দৌড়ে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী থানায় খবর দিলে ভাঙ্গুড়া থানার ওসি রাশেদুল ইসলাম ও এসআই মুরাদ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অভিযান চালিয়ে আধা ঘন্টার মধ্যে ধর্ষক শাহজাহানকে আটক করে।এ বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. রাশিদুল ইসলাম বলেন, আটককৃতের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা রজু করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

সলঙ্গায় স্বেচ্ছাসেবকলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত

মোঃ মুন্না হুসাইন ঃ সিরাজগঞ্জ সলংগা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্বেগে সলংগা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সলংগা ইউনিয়ন আংগারু বাজারে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ ইমরান হাসান লিংকন। সাধারণ সম্পাদক মোঃ আরিফুর ইসলাম তালুকদার এর সঞ্চালনায় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সলংগা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব রায়হান গফুর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সলঙ্গা থানা সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান লাবু ,সলঙ্গা থানা যুবলীগের আহবায়ক ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মোখলেছুর রহমান তালুকদার ও অন্যরা।

সিংড়ার চৌগ্রাম ইউপির উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা

সিংড়া প্রতিনিধি নাটোরের সিংড়া উপজেলার ১০নং চৌগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। বুধবার (২৪ মে) বিকেলে পরিষদ হলরুমে ইউপি চেয়ারম্যান মো. জাহেদুল ইসলাম ভোলা ২০২৩-২৪ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণা করেন। বাজেটে রাজস্ব বাজেট ধরা হয়েছে ২ কোটি ৪০ লাখ ২৩ হাজার ৪৬৯ টাকা ও উন্নয়ন বাজেট ৮১ লক্ষ ৯ হাজার ৭০০ টাকা ধরা হয়েছে।ইউপি সচিব মো. শামীম হোসেনের সঞ্চালনায় ইউপি সদস্য, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লাপাড়ায় এডিপি থেকে উপকরণ বিতরণ

ডাঃ আমজাদ হোসেন ঃ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় আজ বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী (এডিপি) এর আওতায় গরীব অসহায় দুঃস্থ আটত্রিশ পরিবারের মাঝে সেলাই মেশিন ও টিউবওয়েল বিতরণ করা হয়েছে।বেলা সাড়ে এগারোটায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে গরীব পরিবারের ২০ জন নারীকে আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে সেলাই মেশিন দেওয়া হয়। আর ১৮ পরিবারকে টিউবওয়েল দেওয়া হয়। বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ( ইউএনও ) মোঃ উজ্জল হোসেন , উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান পান্না প্রমুখ।

Please follow and like us:
Pin Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this:

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD